Re-reading history of 7th March

কৈশোর চেতনায় জেগে উঠুক সাতই মার্চ : ৭ই মার্চ আমাদের জাতীয় জীবনে একটি স্মরনীয় দিন। শিশু কিশোরদের মধ্যে সাতই মার্চ সম্পর্কে আগ্রহ জাগিয়ে তুলতে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর প্রাঙ্গনে ঢাকার সরকারী ও বেসরকারী স্কলের ছাত্র ছাত্রীদের জন্য জাদুঘর পরিদর্শন ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতার আয়োজন করা হয়।

’কৈশোর চেতনায় জেগে উঠুক সাতই মার্চ’ শীর্ষক  দিন ব্যাপী আয়েজিত এই অনুষ্ঠানে দেশের বিশিষ্ট ব্যাক্তিরাও স্কলের শিক্ষার্থীদের  বঙ্গবন্ধুস্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শনে সঙ্গী হন। সাতই মার্চ সকালের এই আয়োজনে অংশ নেন –কবি মুহম্মদ নুরুল হুদা ও  কবি নির্মলেন্দ গুন ও ছড়াকার আসলাম সানী। বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শনের পাশাপাশি দেশের বিশিষ্ট এই কবিদের বর্ননায় সাতই মার্চ থেকে শুরু করে বঙ্গবন্ধুর জীবনী সহ আমাদের মুক্তিযুদ্ধের নানা টুকরো টুকরো ঘটনা কথা শিশু কিশোরদের মাঝে বেশ আগ্রহ সৃষ্টি করে।
স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন পরবর্তী পর্যায়ে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতা শুরু হয়। জাদুঘর প্রাঙ্গনে আয়োজিত এই চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতায় বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন – বিশিষ্ঠ শিল্পী সমরজিৎ রায় চৌধরী, শিল্পী তরুন ঘোষ ও ইসমত আরা খানম। ঘন্টাব্যাপী চলা এই প্রতিযোগীতার শেষে বিচারকরা সেরা দশজন আঁকিয়েকে পুরস্কত করেন।
সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরন করেন মুক্তিযোদ্ধা ও নাট্য ব্যাক্তিত্ব জনাব নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু।
সাত মার্চ প্রায় দিনব্যাপী চলা এই অনুষ্ঠানে এ ছাড়াও উপস্থিত হয়েছিলেন – বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জনাব জুনায়েদ আহমেদ পলক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ. আ. এ. স. আরেফিন সিদ্দিক, কবি আসাদ চৌধুরী, অভিনেত্রী তারানা হালিম, ছড়াকার আলম তালুকদার সহ আরো অনেকেই।

Leave a Reply